আত্মকথন – ৪

হ্যাঁ ভুলটা আমি ই করেছিলাম । নিছক ভুল নয়, আপাতঃদৃষ্টিতে অন্যায় । তবু ভালবাসাকে তো আর চেপে রাখতে পারিনা দমবন্ধকরা অনুতাপে আর প্রতি মুহুর্তে তোমার অজান্তে শেয়ার করা তোমার প্রতিটি কষ্টের ভারে । সর্ব সমক্ষে ক্ষমা চাইছি তুমি ক্ষমা করবে না জেনেও ।

জানি তুমি এগিয়ে গেছ অনেকটা পথ, আমার চিরকালীন চাওয়া পূর্ণ করেছ নিজের অজান্তেই, সাহসী হয়েছ, হয়েছ আত্মবিশ্বাসে গর্বিত । এখন পিছন ফিরে চাইতে তোমার লজ্জা করে । করাটাই স্বাভাবিক, হিসেব না করেই যে গোলাপ রাখার জন্য তুলে নিয়েছিলে বেঢপ মাটির ভাঁড় । কিন্তু তোমার সত্যিকারের বন্ধুত্বেরা আস্তে আস্তে শিখিয়েছে, তোমায় পরিণত করেছে । এখন তুমি জান, গোলাপের জায়গা মাটির ভাঁড় নয় । সুদৃশ্য আর্টিফেক্ট যুক্ত ফুলদানী ।

আমি সত্যি যে কিছু বুঝিনা, জান তুমি । তাই আমার সঙ্গে তর্ক করা নিরর্থক জেনে এড়িয়ে যাও প্রতিটি দৃশ্য আর অনুভূতির ফ্ল্যাশব্যাক । তবু দীর্ঘ পথে হাঁটতে হাঁটতে যদি কখনও মনে হয়, “ট্রেণ টা লোকাল হলেও দাঁড়িয়ে ছিল, হাতে ছিল সঠিক টিকিট” । জানি মনে হবেনা । কারণ কর্পোরেট পৃথিবীতে ক্ষমাশীল অপরাধীর কোনো ক্ষমা নেই । কারণ ভুলে যাওয়া খুব সহজ, শুধু পাশে কিছু মানুষ থাকা দরকার দুঃসময়ের সাথি হয়ে । যাদের সব বারণ সব সময়েই মেনে চলা হয়, যাঁদের বিশ্বাসঘাতকতার অজুহাতে বিরক্ত করা স্মৃতিগুলোকে বিস্মৃতির কবরে পাঠানো যায় ।

জানি মনে হবেনা কারণ “প্রথম সম্পর্ক” শেষের অফিশিয়াল ঘোষণার মধ্যে লুকিয়ে আছে ভবিষ্যতের ঝেড়ে বেছে চিনে নেওয়া পছন্দসই একটা অবয়বের আকাঙ্খা । যে মানুষটা আর যাই হোক উন্নাসিক, দাম্ভিক বা চাকরীহীন হবেনা । অ্যান্টিক কিউরিও শপের বহুমূল্য ফুলদানিতে সাজানো গোলাপ তার কর্পোরেট উপস্থিতিতে ভ্যালু অ্যাড করবে ইন্টিরিয়র ডেকরেশনে ।

তবু অঘটনেরা ঘটে বলেই পৃথিবী আজও বেঁচে থাকার স্বপ্ন দেখায় ।

তাই যদি কখনও মনে পড়ে বহুপ্রতীক্ষিত বিকেলের একটুখানি দেখার আনন্দ, বন্ধুহীন জীবনের সব কথা কারুর সঙ্গে ভাগ করার আনন্দ, ঘন্টার পর ঘন্টা কলেজের বাইরে শুধু তোমার জন্য কাউকে অপেক্ষা করতে দেখার আনন্দ, প্রতিটি বিপদে একদম নিজের করে কাউকে পাশে পাওয়ার আনন্দ, নিয়মের খাঁচা থেকে একছুট্টে বেরিয়ে এসে শহরটাকে চুপি চুপি ঘুরে দেখার আনন্দ, প্রথম ফেসবুক বা হোয়াটসঅ্যাপ করার আনন্দ, সরস্বতী পূজো, দূর্গাপূজো কিম্বা বড়দিনে কারুর বহু যত্নে বানানো কেকের তীক্ত স্বাদকে অস্বীকার করে ভালবাসার মিষ্টি স্বাদে ভরে দেওয়ার আনন্দ ।

সেই অদ্ভুত ভালোলাগা ঘেরা কষ্টের মুহুর্তের চিন্তায়, তাই তোমার জন্য রেখে গেলাম সেই পৃথিবীর চাবি । যদিও কোনো দাবী নেই তোমার কাছে ।

তুমি ভাল থেক ।

তোমার প্রতিটি পোস্ট, প্রতিটি কথা আমায় তিলে তিলে নিষ্প্রাণ করছে । তাই সম্পূর্ণ মনোরোগী হয়ে যাওয়ার আগেই তোমার দেখানো পথ ধরে আমাকে ভুলে যাওয়ার চেষ্টা করতে হবে সময়টাকে ।

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s