ছিনাথের ল্যাজ

মাঝে মাঝে নতুন জামা পরেনিতে ইচ্ছা করে সবার আড়ালে কোনো গলি ঘুঁজিতে
লাল নীল সবুজ, আলখাল্লা বা কুর্তায়, পাগরী কিম্বা ফেজ কখনওবা দাড়ি কখনও
শুধুই কামানো মাথা বা হাতে কড়া, না না, সর্ব ধর্ম সমন্বয়ের কথা বলতে বসিনি
এটা একান্তই ব্যক্তিগত শখ বা ভণিতা, বহুরূপী জন্মগত কেউ, কেউ শুধু নির্মল
শখে, কারুর নিষ্ফল আক্রোশে নিজের বোকামির লজ্জা ঢাকতে ছিনাথের ল্যাজ
কাটা যায়, পৌরুষের ফিনাইল গন্ধী ঘরের দেওয়াল আলো করে ঝোলে স্টাফড
ট্রোফির মাথা দাঁত বের করা, চোখে বোকা বোকা মার্বেল গোঁজা, আমারও ইচ্ছা
করে তোমার ঘরে তোমার অতীত কৃতিত্ত্বের সাক্ষি হয়ে ঝুলে তোমায় বিকৃত মুখে
অনন্তকাল দাঁত খিঁচোতে, তোমার শেষজীবনের বিকারে জীবন্ত হওয়া দুঃস্বপ্ন হতে

ছিনাথেরা তোমার মত পবিত্রতায় বিশেষ সময়ের তৃষ্ণায় শরীরের গোপন অংশের
আবরণ খুলেদিতে পারেনা অন্ধকার ঘরের মুষ্টিমেয় দেনাপাওনার হিসেবের আসরে
ছিনাথের শরীরের সঙ্গে যে মিশে যায় ওর সাজের চামড়া, কখনও বাঘ, কখনও
ফকির, কখনও রাজা, ছিনাথেরা রাজপথে পথে ঘোরে হাতের বাটিতে কাগজ পিন
ছিনাথেরা খোলা বাজারে আবরণ খুলে নগ্ন হতে জানে, তোমাদের বিদ্রুপের সামনে